মীরের গজল থেকে -৩

মীর তকীকে নারী প্রেমের কবি বলা যায় সঙ্গতভাবে, তবে সে নারীপ্রেমর সুরের মধ্যে মারফতী তথা ঈশ্বর প্রেমের অনুরনন ও শোনা যায় । গালিব কে বলা হয় মুশকিল পছন্দ (দুরুহতা প্রিয়) কবি, তুলনায় মীর কে বলা হয় গম-পছন্দ (দুঃখ প্রিয়) কবি । মীরের জীবন বৃত্তান্ত যতটুকু পাওয়া যায় তার উতস হল ‘ জিক্র ই মীর’ অথবা মীর চর্চা । মুহম্মদ তকী তার লেখন নাম কিংবা তখল্লুস হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন শুধু মীর । তবে আরেক সুপরিচিত কবি মীর দর্দ থেকে পৃথক করার জন্য তাকে উল্লেখ করা হয় ‘মীর তকী মীর’ নামে ।

৩৬

যদি কোথাও পৌঁছে থাকো তাহলে যেনো সবাই খুদার দিকেই চলেছে

পথ যতই ভিন্ন হউকনা কেন গন্তব্য একই । ।

 

৩৭

সে যদি কখনও হাসিমুখে আসে, মনে হয় যেন বসন্ত এলো ধরায়

তার আগমনে যেন সকল ঋতুরই সমাগম । ।

 

৩৮

এসো আমরা পরষ্পরে আসক্ত থাকি চিরদিন

না যেন হারাই আগ্রহ , না আসে উদাসীনতা । ।

 

৩৯

শেষ পর্যন্ত তো হয়েই যাবে প্রেম ও কামনার মাঝে কিছু পার্থক্য

এখন তোমার মনটা পরীক্ষা করে নিতে প্রস্তুত । ।

 

৪০

তবু তার আসাতেই আমার যে কী কী গেল জানতে চেয়োনা,

আমার শান্তি  ও ধৈর্য , শক্তি ও স্বাস্হ্য , যৌবন ও উদ্যম, আরো কত কী !

 

৪১

প্রত্যাখান তো মিলনের আকাঙ্খাকে বাড়িয়েই তোলে।

তোমার ” না ” শুনে কবেই বা আমার হৃদয়কে ফিরিয়ে নিই ?

 

৪২

কখনও সর্বক্ষনই কথা হতো কানে কানে, এখন একেবারেই কথা বন্ধ ।

এ ও এক কাল এসেছে, সেও এক যুগ ছিল ।

 

৪৩

প্রেমাস্পদের কাছে হৃদয় কত কি যে চায় !

প্রেমিকের প্রার্থনার কোন অন্ত নেই । ।

 

৪৪

তোমার মতন সহস্র মানুষকে তিনি আশা দিয়ে সর্বনাশ করেছেন,

এমন সরল বিশ্বাস রেখোনা যে এই যুগ তোমার বন্ধু । ।

 

৪৫

রুপসীদের জগত এক অপার রহস্য

তোমার এই রহস্যের সাগরে ডুব দেয়া দরকার। ।

 

৪৬

আমার বন্ধুর কেশদাম ও বয়ান যারা দেখেছেন

তাঁরা আর ফিরেও তাকান না সন্ধ্যা কি প্রভাতের দিকে । ।

 

৪৭

আহা জগতে যদি প্রেম না থাকত

এ যে না দেয় প্রেমিক কে অব্যাহতি না প্রেমাস্পদকে । ।

 

৪৮

বন্ধুত্বের হেরফেরে সবাই পড়ে, তুমিই প্রেমে পড়ে হলে ছন্নছাড়া,

মীর সাহেব একবার নিজের দিকে চেয়ে দেখো, ককি হাল হয়েছে তোমার। ।

 

৪৯

গোলাপ ফুলের সৌরভ, বুলবুলের করুণ গান

এবং আমার জীবন, হায় কী দ্রুত শেষ হয়ে গেল । ।

 

৫০

পরমায়ুর রবি অস্তগত প্রায়

যা করবার করে ফেল মীর, দিন অল্পই বাকি আছে । ।

 

৫১

অবস্হা তো এই যে দুঃখ থেকে আমার অব্যাহতি নেই,

অন্তর্দাহে হৃদয় এমন জ্বলছে যেন প্রদীপ । ।

 

৫২

কোথাও এখানে একটু দাঁড়াবার ঠাঁই পেলামনা

আমি যেন দুনিয়ার বাগিচায় প্রভমান একটি জলধারা  । ।

 

৫৩

সেই বাঞ্চিত মুক্তাটি আর পেলাম না আমি

এমনি করে খুজে খুজেই মরলাম অবশেষে । ।

 

৫৪

এই ফাঁদে পড়া হৃদয়ের দরদী তো পেলামনা এখানে

এই বেদনা নিয়ে যাব তাঁর কাছে যিনি সব বেদনার অবসান ঘটান । ।

 

৫৫

হয় কাঁদলাম নয় কাঁদালাম-আমারতো এমনি করেই কাটল,

সুখী সহধুরীদের কথাই আলাদা । ।

 

৫৬

ফোসকা পড়ার কান্না এখন থেকেই ?

বন্ধু , দিল্লী এখনও যে অনেক দূর । ।

 

৫৭

প্রেমে তো আমি অপদার্থই সাব্যস্ত হলাম, কেউ এডিকে ফিরেও তাকাবেনা !

সে যদি চোখ তুলে চায় তাও তার সৌজন্য মাত্র । ।

 

৫৮

সব কাজেরও একটা শোভন রীতি আছে,

অপরাধ করবার জন্যও কুশলী হতে হয় । ।

 

৫৯

হায় উপদেস্টা বন্ধু, আমার হৃদয়ের সমস্যা তোমাকে আর কী বলব ?

তুমিত কারূর কেশজালের কুন্ডলীতে ধরা পরোনি । ।

 

৬০

হৃদয়ের চেয়ে ও সুন্দর প্রাসাদ কি কোথাও তৈরি হয় ?

একবার একটু চোখে দেখে নিয়ে তবে না হয় একে ধ্বংস করতে । ।

এই লেখাটি পোস্ট করা হয়েছে বিবিধ-এ। স্থায়ী লিংক বুকমার্ক করুন।

2 Responses to মীরের গজল থেকে -৩

  1. আবদুল্লাহ বলেছেনঃ

    হৃদয়ের চেয়ে ও সুন্দর প্রাসাদ কি কোথাও তৈরি হয় ?

    একবার একটু চোখে দেখে নিয়ে তবে না হয় একে ধ্বংস করতে । ।

    ভাই এইটা বেশি জোস লাগলো।

    • শামসীর বলেছেনঃ

      তবু তার আসাতেই আমার যে কী কী গেল জানতে চেয়োনা,

      আমার শান্তি ও ধৈর্য , শক্তি ও স্বাস্হ্য , যৌবন ও উদ্যম, আরো কত কী !

শামসীর শীর্ষক প্রকাশনায় মন্তব্য করুন জবাব বাতিল

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।