মেয়েদের দিকে আঙুল তোলার আগে নিচু মানসিকতার ছেলেগুলো নিজেদের দিকে তাকাতে ভুলে যায়

ঢাকার ছেলেরা বেশী চাল্লু…! এমন কথা প্রায়ইই শুনি। তবে আমিতো দেখি শুধু ঢাকা নয় অন্যান্য জেলার ছেলেরাও কম কৌশলী না!

ওভার স্মার্ট ছেলেদের বলছি…
চুলে জেল দিয়ে , চোখে হাল ফ্যাশনের সানগ্লাস জাপটে পার্ট মেরে নিত্যনতুন মেয়ে পটাতে ব্যস্ত থাকেন?
কেন?
এটা নিশ্চয়ই একটা ফ্যাশন আপনার কাছে? বন্ধুদের  দিলখুলে দেখানোর কৌশল, যে আপনার কতো ভ্যালু যে কতো মেয়েরা আপনারে দেখে পাঙ্খা হয়া যায়.. মেয়ে পটানোয় কতো অভিজ্ঞ আপনি!
কিন্তু এটাতো দেখলেননা যে একদিন আপনার কপালে যে বউ জুটবে সে হয়তো আপনার থেকে বহুগুণ স্মার্ট হতে পারে ছেলে পটানোয়! আপনি ভালোনা,সুতরাং আপনি কোনদিন ভালো বউ আশাও করতে পারেননা!

আপনি রাস্তার পাশে বাইকে স্টাইল করে বসেন.. কোন সুন্দরী আপনার পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় একটু বেশীই ভাব মেরে সিগারেটে দেদারসে টান মেরে ধোঁয়া উড়িয়ে বাতাস দুষিত করে চুপচাপ মজা নেন?
কেন?
ভাবেন.. মেয়েটা হয়তো আপনার এই হিরো এঙ্গেলে চরম ইমপ্রেস হয়ে যাবে?
কিন্তু ভেবে দেখেন একজন রুচিশীল মেয়ে কখনো আপনার এই আচরণে ইমপ্রেস হবেনা!হবে চরম বিরক্ত..।

আপনি ফেইসবুকে মেয়েদের ফটোতে স্বাভাবিক সুন্দরভাবে মন্তব্য না করে..বরং ইয়ো ইয়ো টাইপ,জাস্ট লাইক..কুউউল বেইবী,সো হট টাইপ কমেন্ট করতে ভালোবাসেন?
কেন ভুলে যান ,আপনার এ ধরনের মন্তব্য আপনাকে ছোটই প্রমাণ করবে,বড় নয়!

এবার, অতি নোংরা অথচ ভাবসাবে ভদ্রতা দেখানো মুখোশধারী ছেলেদের বলি..
যেই মেয়েটিকে বোন ডাকছেন, প্রিয় বন্ধু ডাকছেন তাকে নিয়েও নোংরা চিন্তা করতে বাঁধেনা আপনার?
ফেইসবুকে মা আর বোনকে নিয়ে কতো যে নোংরা গ্রুপ পেইজ খুলেছে আপনার মতো ছেলেরা.. তাদের অমানুষ থেকেও অধম বলি আমরা সভ্য মানুষরা!

রিলেশন করেই রুম ডেটের অফার করেন? আর বলেন ..ওই মেয়ে খারাপ বলেই আমার সাথে রুম ডেট করসে… সো..সেসব ভিডিও  করাতো জন্মগত অধিকার, তাইনা?
কেন?
আপনি ওভার স্মার্ট চকলেট বয়,প্লেবয় হিসেবেই নিজেকে জাহির করতে ভালোবাসেন বলে?
কিন্তু মনে রাখবেন সেই মেয়ে আপনার কথায় রাজী হয়েছে আপনাকে বিশ্বাস করে বলে,এক্ষেত্রে আপনি এবং মেয়েটি কিন্তু খারাপ কাজের সমান ভাগীদার ..।কিন্তু এসবের কৌশলী ভিডিও প্রকাশ করে সমাজের চোখে কেবল মেয়েটিকেই তো বেশ্যা বানালেন, নিজেকে বাহবাও দিলেন,তইনা? !  বাট,ভুলে গেলেন এর পরিনাম ইহকালেই ভোগ করবেন জীবনের একটা চরম পর্যায়ে এসে…আর পরকালে যে কী ফলাফল পাবেন তা তো বলার অপেক্ষা রাখেনা!

(বি.দ্রঃ কমেন্ট করার আগে জেনে রাখুন, এখানে শুধুমাত্র অতিরিক্ত ওভারস্মার্ট এবং নোংরা মানসিকতার সংখ্যাগরিষ্ঠ কিছু ছেলের কথা বলা হয়েছে)

– নওশীন শিকদার

অন্য স্বর সম্পর্কে

ননরেজিস্টার্ড সদস্যগণও যেন সরবে লিখতে পারেন সেই জন্য এই একাউন্ট। যোগাযোগ পাতায় কিছু লিখে জমা দিলে সরব এর মডারেটরগণ তা মূল্যায়ন করবেন। মনোনীত হলে এই একাউন্ট দিয়ে ছাপা হবে।
এই লেখাটি পোস্ট করা হয়েছে চিন্তাভাবনা-এ। স্থায়ী লিংক বুকমার্ক করুন।

3 Responses to মেয়েদের দিকে আঙুল তোলার আগে নিচু মানসিকতার ছেলেগুলো নিজেদের দিকে তাকাতে ভুলে যায়

  1. তুসিন বলেছেনঃ

    অনেকগুলো সত্য ঘটনা তুলে ধরা হয়েছে। 🙂 লেখাটা ভাল লাগলো।

  2. মাধবীলতা বলেছেনঃ

    প্রতিটা লাইনে একদম ঝড়ের বেগে লাইক !! আপু তুমি আমার মনের কথাগুলো একদম গুছিয়ে বলে দিলে !! আজকাল যে কী হয়ে গেছে মানুষগুলোর। এই নষ্ট প্রজন্মকে দেখে বড় কষ্ট হয়।

    নিয়মিত লেখা শুরু করে দাও !!

  3. অক্ষর বলেছেনঃ

    লেখাগুলো খুবই প্রাসঙ্গিক কিন্তু ছেলে-মেয়ের এই কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি দেখতে দেখতে বিরক্ত। জেনারালাইজড করে ছেলেদের গালি দিলেও যেমন এই সমস্যার সমাধান না তেমনি এটাও বলে রাখা ভালো লেখক যেই দৃষ্টিকোণ থেকে বলেছেন সব মেয়ে আবার একই দৃষ্টিকোণ থেকে দেখে না! আপনার দৃষ্টিতে উপরিউক্ত ছেলেগুলোকে ওভার স্মার্ট মনে হচ্ছে কারণ হয়তো আপনি সাদাসিধে কিন্তু একইভাবে আবার সাদাসিধে ছেলেগুলো ওভারস্মার্ট মেয়েদের নিয়ে কমেন্ট করছে! কিন্তু আসলে ভুল শুদ্ধ কে? একদল না দুইজন নাকি কেউই না? আমার মনে হয় এই সমালোচনা দিনের পর দিন চলতে থাকবে কিন্তু পরিবর্তন আনতে হলে দুইদিক থেকেই আনতে হবে। আর আমরা সমাজে ছেলে-মেয়েদের দুই ভিন্ন দৃষ্টিতে দেখি এটাও কিন্তু বড় একটা সমস্যা। জিনগত ভাবে ছেলে মেয়ে বৈচিত্র্য, একে অন্যের প্রতি আকর্ষণ থাকবে এটাই স্বাভাবিক কিন্তু আমার মনে হয় ঐ বৈচিত্র্যকে একটু বেশি মাত্রায় প্রকট করতে গিয়ে সমাজই ছেলে মেয়ে উভয়ের মনে বিকৃত মানসিকতাগুলো ঢুকিয়ে দিচ্ছে। এই ব্যাপারগুলো নিয়ে ভাবনার সময় এসেছে।

    পোস্টের জন্য ধন্যবাদ। লেখালিখি চলুক নিয়মিত। 🙂

অক্ষর শীর্ষক প্রকাশনায় মন্তব্য করুন জবাব বাতিল

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।