পতন

-কী খোঁজো রাত-দিন দুচোখে ক্লান্তিহীন?

-চারিদিকে কেবলই পতন
লণ্ডভণ্ড ছিন্ন ভাঙা স্বপন
খুঁজে দেখি পাই কিনা সবুজ ঘাস,
এক টুকরো সুনীল আকাশ।

-কেবলই পতন দেখো তুমি?
তোমার চোখ জুড়ে বিষাদ মরুভূমি
কী করে এড়িয়ে যাও উত্থানের গল্প,
অল্প স্বল্প পতনে কী এসে যায়?

-আসে যায়, যায় আসে
জলপ্রপাতের জলের মতো গড়িয়ে গড়িয়ে
পতিত হচ্ছে সব কিছু
এমন গাঢ়ো পতনের শব্দ শুনেও
কেমন করে তুমি এড়িয়ে যাও?

-মানুষ তো জল নয়
জলের মতোন গড়িয়ে যাবে
কিংবা আগুন নয়
দাবানল ছড়িয়ে যাবে;
ভয় কিসের অতো?

-মানুষ সব কিছু হয়ে উঠে
পৃথিবী ধারণ করে চোখে
যখন-তখন জলের মতোন আগুন
কিংবা নদীর মতোন আগ্নেয়গিরি
এই বৃষ্টি, এই মরুভূমি
এই শ্বাপদসংকুল, এই অভয়ারণ্য
পতনে মানুষ সব কিছু হয়ে উঠে
তাই ভয়।

ফারাহ্‌ মাহমুদ সম্পর্কে

অবিদিত, জানো কি? বুকের মধ্যে জল তরঙ্গ নিয়ে মানুষ হয়ে জন্ম নেয়া পাপ! অবিদিত, জানো কি? অনুরাগ এক প্রকার সুখকর বিভ্রান্তি..
এই লেখাটি পোস্ট করা হয়েছে কবিতা-এ। স্থায়ী লিংক বুকমার্ক করুন।

3 Responses to পতন

  1. অনিকেত প্রান্তর বলেছেনঃ

    ফাঁকিবাজি টাইপ কমেন্ট করবো; এটা ছাড়া কিছু মাথায় আসছে না…

    ”মানুষ সব কিছু হয়ে উঠে
    পৃথিবী ধারণ করে চোখে
    যখন-তখন জলের মতোন আগুন
    কিংবা নদীর মতোন আগ্নেয়গিরি
    এই বৃষ্টি, এই মরুভূমি
    এই শ্বাপদসংকুল, এই অভয়ারণ্য
    পতনে মানুষ সব কিছু হয়ে উঠে
    তাই ভয়।”
    -কি লিখছো এ’সব মেয়ে? …অনেক বড় হও (y) 😀

ফারাহ্‌ মাহমুদ শীর্ষক প্রকাশনায় মন্তব্য করুন জবাব বাতিল

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।