নিশীথ রাতের বাদল ধারা

কালো আকাশটার বুক চিড়ে হঠাৎ করেই যেন নেমে এলো তুমুল বর্ষণ, সাথে নিয়ে এলো গুড়ুগুড়ু মেঘের গর্জন। মনের গুমোট হাওয়াটার ঠিক পাশ দিয়েই যেন বয়ে গেল মাটির সোঁদা গন্ধমাখা বরফ শীতল ঝোড়ো বাতাস। সাথে নিয়ে গেল এইমাত্র উষ্ণ হয়ে যাওয়া নোনা বাতাসের ঝটকাটাও, যেন আমার মুখের সামনে আর মানাচ্ছে না ওটা। অনেকক্ষণ আগে এখানে এসে বসেছিলাম,ঘাসের বুকে পা ছড়িয়ে। অনেকদিন রাতের গোমড়ামুখো কালো আকাশটাকে দেখা হয়না তেমন করে। ঘাসগুলোর গায়ে আলতো করে বিলি কেটে দিইনি অনেকদিন। অনেকদিন হয়ে গেছে, এইভাবে ঘাসের বুকে নিশ্চিন্তে পা এলিয়ে বসিনি……হ্যাঁ, সে তো অনেকদিন হল।

অন্ধকারে একলা বসে ভিজছি কেবল। বুক ভরে ঠাণ্ডা বাতাসের তীক্ষ্ণ ফলাগুলো ঢুকিয়ে নিচ্ছি নিঃশ্বাসের সাথে। বৃষ্টির ফোঁটাগুলোও গাল গড়িয়ে নিজেকে একাকার করে নিচ্ছে চোখের পাপড়ি ছুঁয়ে নেমে আসা নোনা জলটুকুর সাথে। কোথাও থেকে খুব মিষ্টি গন্ধ ভেসে আসছে যেন, শিউলি কিংবা বকুল। একটা বোবা হাহাকারের নিস্তেজ অভিমান গ্রাস করে নিচ্ছে আমার পুরোটা শরীর। যেন আমি আছি অচেনা কোন এক জগতের মাঝে। বাস্তবের সাথে সেঁটে থাকা আমার শরীর সেই অচেনা জগৎটাকে খুঁজে পাচ্ছেনা, হাতড়ে মরছে শুধু। আমি যেন নিস্তেজ পড়ে আছি অন্ধকার আকাশের এই বাস্তব জগৎটাতে। বোবা কান্না হয়ে পড়ে আছে বোবা শরীরটাও।

অনেকদিন আগে,মনে পরে? মেঘের সাথে এক পশলা বৃষ্টি পাঠিয়েছিলে তুমি, আমাকে ভেজাবে বলে। কিন্তু নিইনি আমি। তোমার সাথে ভিজব, তাই ফিরিয়ে দিয়েছিলাম বৃষ্টির ছটা। তারপর কথা হয়েছিল ,একদিন বৃষ্টিতে ভিজব আমরা দুজন। দূরে কোন এক গাঁয়ের ভেতর দিয়ে চলে যাওয়া রেললাইনের দু’ধারে দুজন। একসাথে ধরা হাতের বাঁধনটা রেললাইনের ঠিক মাঝখানটায়……। আমরা হাঁটতে থাকব অনন্তকাল,যেন সেই পথ কখনোই ফুরোবে না।
যদি কোন রেল আসে? তখন কি এক ঝটকায় হাত ছেড়ে চলে যাব দুজন দু’ধারে?? না তো? যেখানে যাবো,এক সাথেই যাবো………

কোথায় তুমি? আমাদের একসাথে চলার পথটা কি হারিয়েছে অবেলায়? কেন অন্ধকার আকাশের কালো কান্নার সাথে মিলিয়ে একলাই কেঁদে চলেছি কেবল? বৃষ্টির গন্ধমাখা সোঁদো হাওয়া আমার বুক চিড়ে ব্যাথার কালো চিৎকার বের করে নিচ্ছে প্রতিটি নিঃশ্বাসে। আর কত অন্ধকারে যাবো? আর কত অন্ধকারে তুমি আছো ???

সরল সম্পর্কে

সরল মনের মানুষ
এই লেখাটি পোস্ট করা হয়েছে বিবিধ, হাবিজাবি-এ। স্থায়ী লিংক বুকমার্ক করুন।

20 Responses to নিশীথ রাতের বাদল ধারা

  1. রাইয়্যান বলেছেনঃ

    ভালো লেগেছে! :beshikhushi:

  2. স্বপ্ন বিলাস বলেছেনঃ

    আরেকটু বড় হবে আশা করেছিলাম।
    ভালো লেগেছে………

  3. সরল বলেছেনঃ

    অনেক ধন্যবাদ 🙂

  4. বোহেমিয়ান বলেছেনঃ

    রোম্যান্টিক বৃষ্টিতে সরব ভেসে যাচ্ছে দেখি! 😛

    চালিয়ে যাও! 😀

  5. স্ফটিক বলেছেনঃ

    সুন্দর হয়েছে..।।তাড়াতাড়ি শেষ হওয়াতে একটু অপূর্ণতা থেকে গেছে…

  6. সামিরা বলেছেনঃ

    অনেক সুন্দর হইছে রে। 😀 আগে বেশ কয়েকবার পড়া হয়ে গেছে, তাই আর পড়লাম না। 😛 “গুমোট” হবে বাই দ্য ওয়ে, গুমট না।

  7. অবন্তিকা বলেছেনঃ

    “মেঘের সাথে এক পশলা বৃষ্টি পাঠিয়েছিলে তুমি, আমাকে ভেজাবে বলে। কিন্তু নিইনি আমি। তোমার সাথে ভিজব, তাই ফিরিয়ে দিয়েছিলাম বৃষ্টির ছটা।” -দারুন! :clappinghands:

  8. ফিনিক্স বলেছেনঃ

    দারুণ প্রাঞ্জল লেখনী। 🙂

  9. অনাবিল বলেছেনঃ

    বৃষ্টিতে ভিজতে চাই… 🙂

    ভালো লেগেছে… 🙂

  10. সাদামাটা বলেছেনঃ

    ভালো লাগলো 🙂

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।