মেলবোর্নে…

পাওলো কোয়েলহো’র ডায়েরী থেকে

মেলবোর্নের এক লেখক উৎসবে আমার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলাম। সকাল ১০ টা বাজছিল, এবং পুরো হলরুম ছিল দর্শকে পরিপূর্ণ। জন ফেল্টন নামের এক স্থানীয় লেখক আমার ইন্টারভিউ নেয়ার কথা।

আমি স্টেজে উঠলাম আমার গতানুগতিক আগন্তুক মানসিকতা নিয়ে। ফেল্টন আমার কাছে নিজের পরিচয় দিলেন এবং প্রশ্ন শুরু করে দিলেন। যখন আমি উত্তর দিতে গেলাম, তিনি মাঝপথে থামিয়ে দিয়ে বললেন, “আপনার উত্তর ততটা স্পষ্ট না”। এভাবে বেশ কয়েকটা প্রশ্ন-উত্তর পার হলো। ফেল্টন প্রতিবারই উত্তর দেবার মাঝপথে আমাকে থামিয়ে দিতে থাকলেন। সবাই অনুভব অস্বস্থি অনুভব করছিল, দর্শকরা বুঝতে পারছিলেন, কোথাও একটা খটকা আছে। আমার কনফুসিয়াসের একটা বাণী মনে পড়ে গেল এবং আমি একমাত্র পথটি বেছে নিলাম।

“আপনি আমার লেখা পছন্দ করেন?” আমি ফেল্টনকে জিজ্ঞাসা করলাম।

“এট অবান্তর প্রশ্ন।” ফেল্টনের জবাব। “আমি আপনাকে ইন্টারভিউ করতে এসেছি, আপনি আামাকে না”।

“কিন্তু এটা প্রাসঙ্গিক প্রশ্ন”, আমি বললাম। “আপনি তো আমাকে আমার কথা শেষ করতে দিচ্ছেন না। কনফুসিয়াস বলেছেন, যখনই সম্ভব হয় নিজের কথা পরিষ্কার ভাবে বলে ফেল। আসেন আমরা এই উপদেশটা কাজে লাগাই, এবং পরিষ্কার হয়ে নেই: আপনি কি আমার লেখা পছন্দ করেন?”

“না করি না। আমি আপনার দুটো বই পড়েছি এবং দুটোই আমার ঘৃণার উদ্রেক করেছে”। ফেল্টন বললেন।

“ফাইন, এবার আমরা আমাদের কথা চালিয়ে যেতে পারি।” আমি বললাম।

এভাবে আমাদের যুদ্ধের সীমারেখা আকাঁ হলো। দর্শকরাও স্বস্থি পেলেন। এবং পুরো পরিবেশে যেন বিদ্যুৎ খেলে গেল। পুরো ইন্টারভিউটাই ছিল একটা জমজমাট বিতর্ক এবং দর্শকটা সবাই- ফেল্টন সহ- এই অনুষ্ঠানের ফলাফলে সন্তুষ্ট হলেন।

এই লেখাটি পোস্ট করা হয়েছে অনুবাদ, ইতিবাচক-এ এবং ট্যাগ হয়েছে স্থায়ী লিংক বুকমার্ক করুন।

10 Responses to মেলবোর্নে…

  1. ওয়াহিদ সুজন বলেছেনঃ

    🙁

  2. বোহেমিয়ান বলেছেনঃ

    খাইসে!
    লিঙ্ক দিলে ভালো হত ভাই।

    কোয়েলহোর লেখাও পছন্দ হয় না!!

  3. সামিরা বলেছেনঃ

    কোয়েলহো লোকটা যে কী! 😀

    মূলটা পড়েছিলাম মনে হয়।

  4. জ্ঞানচোর বলেছেনঃ

    ভয় পেয়েছি।
    কোয়েলহো বলে এত কিছু করতে পেরেছেন। আমার মতো রহিম করিম হলে, অনুষ্ঠান বানচাল করে আসতাম। হে হে হে।

    তারপরও, মোরালটা ভাল লাগলো।
    যুদ্ধের সীমারেখা।

  5. ফিনিক্স বলেছেনঃ

    কোয়েলহো বস! এইসব ঘটনায় উত্তরও দিতে পারেন সেইরকম!

  6. অনাবিল বলেছেনঃ

    কোয়েলহো!
    অনেক ভালো লাগে… 🙂

    অনুবাদ চমৎকার হয়েছে……

  7. বাবুনি সুপ্তি বলেছেনঃ

    বুঝলাম না ঠিক। 🙁

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।