Category Archive: গল্প

ইতস্তত বিপ্লবী ৪ : একটি বৃষ্টি বিড়ালের চোখ

[ আগের পর্ব তিনটি না পড়েও যদি কেউ এই পর্বটি পড়ে থাকে, একটা নতুন গল্প হিসেবেই বুঝতে পারবে কাহিনী, তেমনভাবেই লিখা হয়েছে এই পর্ব। কিন্তু পরিপূর্ণ স্বাদের জন্য আগের তিনটি পর্ব পড়া আবশ্যক। নাহলে পড়ার আনন্দ কিছুটা মাটি হবেই। এই পর্ব পড়ার আগে পাঠকের সুবিধার্থেই আগের তিনটি পর্ব আগে পড়ে আসার অনুরোধ রইল। নিচের লিঙ্কগুলোতে পাওয়া …

Continue reading »

কাছের মানুষ

বিরক্তিতে ভ্রূ কুঁচকে তাকালো আকাশ। পেছন থেকে পাঞ্জাবির কোণায় হ্যাঁচকা টান পড়েছে। মেজাজ আগে থেকেই চড়ে ছিলো। রিকশাওয়ালা ভাড়া নিয়ে অযথা তর্ক করেছে। এখন নোংরা ছেড়া হাফপ্যান্ট পরা ছেলেটাকে দেখে বিরক্তিটা আরও বাড়লো। ঢাকা শহরে এদের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। দেখতে দেখতে আর সমবেদনাও জাগে না। গরম চোখে ছেলেটার দিকে চাইলো সে। চোখ দিয়েই …

Continue reading »

অন্য (বিজ্ঞান কল্পকাহিনী)

মার্স আন্ডারগ্রাউন্ড হিউম্যান সেটেলমেন্ট- সেক্টর ৭০৪: সেক্টর ক্যাপিটাল সিচুয়েশন-রুমের মাঝখানে গোল টেবিলটা। তার চারপাশে সব মিলিয়ে দশ জন বসার মতো চেয়ার রয়েছে। এর বেশি আর তেমন কোনো আসবাব নেই ঘরে। তাতেই মনে হচ্ছে ঘরে দম ফেলার জায়গা ফুরিয়ে এসেছে। মাটির তলায় বসবাস করতে থাকায় অতিরিক্ত জায়গা ব্যবহারের বিলাসিতা থেকে সরে এসেছে মঙ্গলের সমাজ। পুরো মঙ্গল …

Continue reading »

সামিরা’পুর ফুড স্পেশাল সরব আড্ডা

শুধু খেতে হয় বলে খাই নাকি আড্ডা দিতে হয় বলেও? এই তো গেলো শুক্রবারে সামিরা’পুর হাতের রান্না খাবার লোভে অনেক দিন পর সরব পরিবার আড্ডায় সরব হলো সামিরা’পুর মায়ের বাসায়। এই ফাঁকে বলে রাখি জাকির ভাইয়া বলেছিলেন যে সরব সদস্য সবার আগে আসবে, সে একটা চকোলেট পাবে উপহার হিসেবে। আমি এখনো আমার প্রাপ্য বুঝে পাই …

Continue reading »

দ্বিতীয় সভ্যতা- পর্ব:১ (বিজ্ঞান কল্পকাহিনী)

১. মনিটরে উঁকি মেরে ক্যাপ্টেন বললো, ওরা করছেটা কি? চিন্তিত মুখে তরুণ-অফিসার ফিনোচ বললো, স্যার, ওরা আমাদের গ্রিড হ্যাক করতে চাইছে। রাগে ক্যাপ্টেন উলটো ঘুরে দাঁড়ালেন, এতো সহজ! দুই পয়সার রেজিস্টেন্সরা সরকারি গ্রিড হ্যাক করতে চায়! চোখ-মুখে ক্রোধ বাসা বাঁধলেও কচলাতে থাকা হাতটা তার ভেতরের উত্তেজনাটুকু ঠিকই প্রকাশ করে ফেললো। ফিনোচের ডেস্ক থেকে সরে এলো …

Continue reading »

নিরন্তর ভালোবাসা

(১) মেজাজটাই খারাপ হয়ে যাচ্ছে নাঈমার। অনেক্ষন ধরে চেষ্টা করেও শাড়িটা ঠিক মত পড়তে পারছে না। বারবারই ঝামেলা পাকায় শাড়িটা। হঠাৎ ড্রেসিং টেবিলের আয়নায় চোখ পড়তেই দেখে তার দিকে তাকিয়ে দাঁত কেলিয়ে হাসছে সাদী;- তার স্বামী। – এই দুষ্টু! কী দেখো? – তোমার নাভী জানে নতজানু সৎ প্রেমিকের নজরটা কোনখানে!! – যাহ্‌! পলাশের রক্তিম আভা …

Continue reading »

চিরকুটে মায়া-আমন্ত্রণ

ঘরের ভেতর বিকেলের হেলে পড়া ক্লান্ত সূর্যের আলোয় জেগে উঠেছে আলস্যের পাখনা। কী ভীষণ নরম রোদ! গায়ে মেখে দুই হাঁটু ভাঁজ করে চুপটি করে বসে থাকতে ইচ্ছে করে। ছাদে গিয়ে পাখিগুলোকে বেড়িয়ে আনার সময় হয়েছে। দু’জোড়া পাখির একটি মারা গেছে প্রতিপক্ষের রাজার ঠোঁকরে। এতদিন ভাবতাম,কেবল মানুষ হিংসা করতে পারে,পাখিও কি পারে? আচ্ছা,হিংসা তো আবেগেরই অংশ। …

Continue reading »

ভালো লাগা, মন্দ লাগা

স্নিগ্ধাকে ভালো লাগে তার প্রাণবন্ততার জন্য। অন্যান্য ছেলেরা স্নিগ্ধা মধ্যে যে ধরণের সৌন্দর্য খুঁজবে, তা হয়তো স্নিগ্ধার মধ্যে নেই। না না, স্নিগ্ধা অসুন্দর না। বন্ধুরা মেয়েদের বর্ণনা যেমন দেয়, তেমন নয় স্নিগ্ধা। তারা সবার আগে ফর্সাটাকেই কেন জানি প্রাধান্য দেয়। স্নিগ্ধা ফর্সা নয়। শ্যমলা। সুন্দর। ন্যাচারাল বিউটি যাকে বলে, সেটা। তার মুখে যে মায়া রয়েছে, …

Continue reading »

“ধোঁয়াশা” পর্ব-০১

দিনকাল ভালো যাচ্ছে না মোতাব্বির সাহেবের। একের পর এক ব্যবসায় লস দিয়ে প্রায় সর্বশান্ত হতে বসেছেন। শেয়ার মার্কেটে তার কোম্পানির শেয়ারের দামও কমছে হু হু করে। কোন কিছুর কুল কিনারা খুঁজে পাচ্ছেন না। একদিকে ব্যবসা বাণিজ্য আরেকদিকে নিজের শরীর স্বাস্থ্য, কোনটাই ভালো নেই। এই দুইয়ের প্রভাব গিয়ে পরছে সাংসারিক জীবনে। স্ত্রী বীণাকে সময় দিতে পারছেন …

Continue reading »

বেনামী গল্প-১

আমি রোদের মধ্যে রোদ হয়ে যাই, ঘাসের মধ্যে ঘাস। কখনোবা মেঘের সাথেও ভাসি। আজ বৃষ্টিবেলায় একটা চিলের মসৃন পালকের গোড়ায় নরম মাংসের ওম নিয়ে বেশ ঘুমিয়েছি। বৃষ্টি কেটে যেতেই তার চোখের মণিতে উঠে বসলাম। ধীরলয়ে গোত্তা খাওয়া চিলটা এভাবেই সন্ধ্যা পর্যন্ত আকাশের গায়ে লেপ্টে রইবে। তার আগেই আমি হয়তো কোন বাসার অ্যান্টেনা কিংবা পথে পড়ে …

Continue reading »

Older posts «